KM Farhan https://www.kmfarhan.com/2022/03/blog-post_19.html

খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী

খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী

খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী সম্পর্কে কি জানেন ?খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী কিভাবে জানবেন?খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী জানার উপায় কি?


খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী। কিভাবে খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী জানবেন ?খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী জানার উপায় কি?খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী কেনো জানবেন?ইসলামের চতুর্থ খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী জানুন ।

আস্সালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু, প্রিয় বন্ধুরা আপনাদের কি খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী সম্পর্কে কোনো ধারণা আছে ?খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী খুঁজছেন ? আপনি কি জানেন খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী গুলো ?

আপনি নিশ্চয়ই জানেন না যে খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী ।তবে আজকের পোস্টটিতে আপনাদের জন্য থাকছে খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী সম্পর্কিত তথ্য এজন্য দয়া করে পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়বেন।

ইসলামের চার খলিফা/খোলাফায়ে রাশেদীন

ইসলামের ইতিহাসে বহু সংখ্যক নবী-রাসূলের আগমন ঘটেছিল।মুসলিম জাহানের ইতিহাসে নবী-রাসূল ছাড়াও
কয়েকজন খলিফার আগমন ঘটেছিল যারা ছিলেন মুসলিম সেনা ও বীর পুরুষ ।

খলিফার আগমন/জামানার এই সময়কালকে খোলাফায়ে 
রাশেদীন বলা হয় ।খোলাফায়ে রাশেদীনের গল্পে রয়েছে চারজন খলিফার জীবনী যা মুসলিম জাতির কাছে চির স্বরণীয় ।চারজন খলিফার সঙ্গে রাসূল(সাঃ) এর সুসম্পর্ক ছিল ।

আরো পড়ুন খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী

ইসলামের প্রথম খলিফা হলেন হযরত আবুবকর(রা), যিনাকে রাসূল সিদ্দিক উপাধি দান করেন ।রাসূল যখন মিরাজের ঘটনা আবুবকর (রাঃ) কে বলেন তখন তিনি এককথায় তা বিশ্বাস করে নেন।

ইসলামের দ্বিতীয় খলিফা হলেন হযরত উমর(রাঃ),যিনি রাসূলের নিকট ইসলাম গ্রহণ করে "ফারুক" উপাধি পান।
তৃতীয় খলিফার নাম হযরত উসমান(রাঃ),রাসূলের কণ্যা রুকাইয়া কে বিয়ের পর যখন মারা যায় তখন তাকে রাসূল 
উনার আরেক কণ্যা উম্মে কুলসুমের সঙ্গে বিবাহ দেন।এজন্য তিনি জুনুরাইন উপাধি পান।

ইসলামের সর্বশেষ খলিফা হযরত আলী(রাঃ)।যিনি রাসূলের বড় জামাই।

খলিফা হযরত আলী(রাঃ)এর অমূল্য বানী জানতে পারবেন

হযরত আলী(রাঃ)-এর পরিচয় 

মানবজাতির ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সে যিনি ইসলাম 
গ্রহণ করেন তিনি হলেন হযরত আলী (রাঃ)।তিনি ছিলেন 
ইসলামের চতুর্থ খলিফা এবং রাসূলের বড় জামাই।

রাসূল(সাঃ) এর বড় কণ্যা, আমাদের মা ফাতেমার প্রিয় 
স্বামী হলেন হযরত আলী(রাঃ)।তিনি ছিলেন বীর যোদ্ধা।
রাসূল আলীর বীরত্বের পরিচয় পেয়ে তাকে একটি তরবারি উপহার দেন এবং তাকে "আল্লাহর সিংহ ঘোষণা" করেন । 

হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বাণী 

খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী সম্পর্কে জানুন 
৬০০ খ্রিস্টাব্দে জন্ম নেয়া বালক হযরত আলী (রাঃ)।তার পিতা আবু তালেব,মাতা ফাতেমা বিনতে আসাদ।মাত্র দশ বছর বয়সেই তিনি ইসলাম গ্রহণ করেন ।খাইবারের যুদ্ধে
তিনি বীরত্বের পরিচয় দেন,রাসূল তাকে তরবারি উপহার দেন যার নাম"জুলফিকার"।

"জুলফিকার" তরবারি লাভের ফলে তিনি "আসাদুল্লাহ"(আল্লাহর সিংহ) উপাধি লাভ করেন ।তিনি বীর যোদ্ধা ও অত্যন্ত শক্তিশালী ছিলেন।হাসান-হোসাইন তারই সন্তান ।

মুসলিম জাহানের খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী পড়ুন 

হযরত আলী বলেন, "মানুষকে সৃষ্টি করা হয়েছে প্রেম-ভালোবাসার জন্য।বস্তু সৃষ্টি করা হয়েছে ব্যবহারের জন্য ।কিন্তু সমস্যা তখন জন্ম নেয়,যখন মানুষকে ব্যবহার করা হয় এবং বস্তুকে ভালোবাসা হয়"।

তিনি বলেন, "মানুষ উত্তম নিয়তের কারণে সাওয়াব/নেকি লাভ করে।তবে অনেকে সময় উত্তম নিয়তেও কিছু পাওয়া যায় না।কারণ সাওয়াব বা নাকি দৃশ্যমান হয় না  "।

"ধনসম্পদ মাটির মতো।আর এটি সংরক্ষণের সঠিক স্থান হল মাটির তলে।সেটা যদি মাথায় রাখা হয় তাহলে তা কবরের মতো ।তবে কবর তো আর জীবিত মানুষের জন্য নয়"।

"নেককার কাজে মানুষের শুধু মঙ্গলই হয়।কেননা তা ফুলের মতো,যার ওপর দিয়ে বাতাস প্রবাহিত হয়ে সুগন্ধ ছড়ায় "।

তাহলে আপনারা জানতে পারলেন খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী।আশা করি আপনারা সবাই খলিফা হযরত আলী(রাঃ) এর অমূল্য বানী 
সম্পর্কে জানতে পেরে উপকৃত হয়েছেন ।আমাদের পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ধৈর্য ধরে পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ ।

আমাদের এই সাইটটিতে ইসলামিক স্বাস্থ্য মোটিভেশনাল এবং বিভিন্ন টিপস এন্ড ট্রিক্স নিয়ে পোস্ট করা হয় তাই নিয়মিত সাইটটি ভিজিট করুন ধন্যবাদ ।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া