KM Farhan https://www.kmfarhan.com/2021/04/youtube-all-types-tips-and-tricks.html

YouTube all types tips and tricks _ kasmim

আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ, আশা করি অনেক ভাল আছেন যদি মনে করে থাকেন যে আপনি ভালো নেই তবুও শুকরিয়া আদায় করুন আলহামদুলিল্লাহ বলুন এতে আল্লাহ আপনার প্রতি নিয়মত বাড়িয়ে দিবে।

এই পোস্টটিতে আমি শেয়ার করব..

ইউটিউব এর খুঁটিনাটি সকল বিষয়  | YouTube make money tutorial.. 

  • Google adsense বাদে other ad দেখিয়ে আয়..
  • ট্রেন্ডিং টপিকস বেছে নেওয়ার কারণ



যেভুলগুলো জন্য ইউটিউবের ভিডিও বেশি ভিউ হয় না:

বিশেষ করে নতুন ইউটিউবারদের ইউটিউব সম্পর্কে ভালো জ্ঞান না থাকায় তাদের ভিডিওগুলো বেশি ভাইরাল হয় না বা তাদের চ্যানেলটি টার্মিনেট হয়ে যায়। এতে তাদের চ্যানেলে আপলোড করা ভিডিও গুলোর ভিউ অনেক কমে যায়।

যেভুলের জন্যে ইউটিউবের ভিডিও বেশি ভিউ হয় না। | যেভুলের জন্য ইউটিউবের ভিডিও ভাইরাল হয় না।

১. বিভিন্ন ধরনের ভিডিও একটি চ্যানেলে আপলোড করা।

আপনি যদি যেকোনো একটি ক্যাটাগরি নিয়ে কাজ করে থাকেন তাহলে সেই চ্যানেলটির ভিডিওগুলো একটু বেশি ইউটিউব ইউজারদের ওয়ালে চলে যাবে এতে আপনার চ্যানেলের ভিডিওতে ভিউ বেশি হবে হবে।

যেকোনো একটি ক্যাটাগরিতে চ্যানেলটি সাজাবেন যেমন টেক ব্লগ, ফুড ব্লগ, ট্রাভেলিং, স্টান্ট, প্রডাক্ট রিভিউ ইত্যাদি।

২. চ্যানেলে রেগুলারিটি মেন্টেন না করা। 

আপনি যদি ইউটিউব থেকে আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই এতে সময় ও শ্রম পর্যাপ্ত পরিমাণে দিতে হবে। একটা জিনিস সর্বদা মনে রাখবেন যে সময় শ্রম ছাড়া কোনো কিছু অর্জন করা সম্ভব নয়। কাজ করতে হবে।

আপনি যদি কোন চাকরি করে করে থাকেন তাহলে আপনি বুঝতে পারবেন চাকরি করার জন্য আপনাকে প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময়ে অফিসে কাজ করতে হয় এর বিনিময়ে আপনি টাকা পান। পেশাদারিত্ব মনোভাব যা আপনার যেকোন কাজে আপনাকে সফলতা এনে দিবে।

এই ব্লগটি অনেক ইম্পরট্যান্ট কেননা এই ব্লগে ইউটিউব এর অনেক বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে যা আপনি মানতে পারলে খুব সহজে অতি অল্প পরিশ্রমে ইউটিউব থেকে সফলতা অর্জন করতে পারবেন বাসায় বসে থেকে আয় করতে পারবেন ইউটিউব এর মাধ্যমে।

মূল বিষয় হলো আপনার চ্যানেলে আপনাকে রেগুলারিটি মেন্টেন করতে হবে। আপনি টার্গেট নিয়ে কাজ করবেন সে প্রতি সপ্তাহে আপনি একটা করে হলেও ভিডিও আপলোড করবেন এটা করা যাবে না যে এক সপ্তাহ তে আপনি তিনটে ভিডিও আপলোড করে ফেলেন এর পরের মাসে যে আপনি দুইটা করলেন সারা মাসে এরকম করা যাবেনা।

৩. স্পামিং করা:

দেখেছ অনেক নতুন ইউটিউবার তাদের ইউটিউব চ্যানেলকে গ্রো করার জন্য তারা অন্যের চ্যানেলের কমেন্ট বক্সে তাদের ইউটিউব চ্যানেলের লিংক দেন এবং অনুরোধ করেন তাদের ভিডিওটি দেখার জন্য এগুলা করা যাবে না। আপনার কাজ করে যেতে হবে।

আপনি লিঙ্ক শেয়ার করলে ফেসবুকে লিংক শেয়ার করতে পারেন ম্যাসেঞ্জার শেয়ার করতে পারেন অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতে লিংক শেয়ার করতে পারেন। কিন্তু ইউটিউবে করাটা ইউটিউব তা পছন্দ করে না। এবং তারপর কোন কপি পেস্ট ওয়েবসাইট এর লিংক শেয়ার করা যাবে না ইউটিউবে।

আপনি যখন আপনার কোন ইউটিউব এর ভিডিও অন্য কোন চ্যানেলের কমেন্ট বক্সে আপনার ভিডিওর লিংক শেয়ার করে বলবেন যে আমার ভিডিওটি দেখতে ক্লিক করুন বা দয়া করে ভিডিওটি দেখুন এগুলো যেহেতু ইউটিউব পছন্দ করেনা এর সাথে কোন ইউটিউব চ্যানেল এর মালিক তা পছন্দ করবে না। সে চাইলে আপনার চ্যানেলের রিপোর্ট দিতে পারে।

দেখা যাবে মনিটাইজেশন আপনাকে দিল না এই ছোট্ট ভুলটা কার জন্য তাই এই সমস্ত ভুল কখনো করবেন না।

৪. যে ইমেইল দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল খুলবেন সেই ইমেইল পাবলিক না করা। 

ভাই দুষ্টু লোকের অভাব নেই আপনি যদি আপনার ইমেইল টি পাবলিক করেন তাহলে যে কেউ আপনার ইমেজটি হ্যাক করে নিতে পারে তাই যে ইমেইল দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল খোলা  বা অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট খোলা সেই ইমেইল পাবলিক না করা।

৫. ট্যাগ কপি করা

আপনি যদি অন্য কোন ভিডিও এর ট্যাগ কপি করেন তাহলে আপনার চ্যানেলটি টার্মিনেট হতে পারে। এটি থেকে বিরত থাকুন। আপনি নিচে লিখবেন কিন্তু কোন চ্যানেলের থেকে কপি করবেন না।

যে বিষয়গুলো মেনে কাজ করলে ইউটিউব ভিডিও এর ভিউ বাড়বে।

আমি যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করছি এবং আপনি যদি সম্পূর্ণ পড়েন এবং তা যদি মানেন তাহলে আশা করা যায় আপনার ইউটিউব চ্যানেলের গ্রোথ অবশ্যই বাড়বে।

আপনি একজন নতুন ইউটিউবার যথেষ্ট পরিমাণে সময় শ্রম দিচ্ছেন কিন্তু আপনার ভিডিও এর ভিউ বাড়ছে না এখন আপনি কি করবেন??

হতে পারে আপনি যে ভিডিওগুলো ছাড়ছেন সেই ভিডিও গুলো হয়তো অতটা গুরুত্বপূর্ণ না, সেই বিষয়ে মানুষ কম সার্চ দিচ্ছে বা আপনি ভালোভাবে হ্যাশট্যাগ ইউজ করতে পারছেন না। বা হতে পারে আপনার থাম্বেল অতটা ইন্টারেস্টিং না। এখন আপনি একটু রিয়েলাইজ করেন যে এই সমস্যা গুলোর মধ্যে কোনটা আপনার হচ্ছে।

সঠিক হ্যাশট্যাগ এর ব্যবহার জানতে এখানে ক্লিক করুন

হ্যাশট্যাগ | #tag এর সঠিক ব্যবহার:

হ্যাশট্যাগ এর বিষয় নিয়ে বলার কারণ আমরা অনেকেই এর ব্যবহার জানিনা। আপনি যদি ফেসবুকের দিকেই তাকান সবাই কাল লেখাকে নীল কালার করার জন্য হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে। #tag এর সঠিক ব্যবহার নিয়ে কথা বলছি। যেমন 


আসলেই কি #tag এর ব্যবহার এটা??


#tag এর ব্যবহার প্রথমে শুরু হয় টুইটারে, হ্যাশট্যাগ মূলত কিছু টাইপের মানুষকে টার্গেট করা। হ্যাশট্যাগ করলে মূলত ওই লেখাটা একটা লিঙ্ক এ পরিণত হয় যেটাতে মানুষ ক্লিক করতে পারবে এবং ওই সাইটে মানুষ ঢুকতে পারবে।
#tag মূলত একটা ক্যাটাগরি তৈরি করে দেয় যে কোনো পোস্টকে দেখা যায় আপনি কোন একটা বিষয়ে সার্চ করেছেন ট্যাগ এর কারনে সিমিলার জিনিসগুলো আপনার সামনে চলে আসবে।
যেকোনো বিষয় একসাথে পাওয়ার জন্য #tag ব্যবহার করা হয়। মানে মেনশন করা আর কি। 

ট্রেন্ডিং টপিকস বেছে নেওয়ার কারণ



কিভাবে একটি প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল খুলবো: 

তা ভিডিও আকারে দেখতে ক্লিক করুন....

ইউটিউব চ্যানেল খুলতে প্রথমে আপনার একটা জিমেইল এর প্রয়োজন হবে। তারপর আপনি ইউটিউবে প্রবেশ করবেন।
উপরের জিমেইল অপশন এ ক্লিক করুন।


ক্লিক করার পর নিচের পিকচারের মত অপশন আসবে যদি আপনার কোন ইউটিউব চ্যানেল না থেকে থাকে।মাউস এ দেখানো অপশনটি যদি ক্লিক করেন তাহলে প্রফেশনাল বিজনেস চ্যানেল ক্রিয়েট করতে পারবেন।
এখানে ক্লিক করার পর নিচের পিকচারেের মত অপশন আসবে। এখানে আপনার পছন্দের নামটি বসিয়ে চ্যানেল ক্রিয়েট করে নিতে পারবেন।

প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল এর সুবিধা  /বিজনেস ইউটিউব চ্যানেল এর সুবিধা:

রেগুলার ইউটিউব চ্যানেল আর প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল এরমধ্যে ডিফারেন্স রয়েছে।
  1. ব্র্যান্ড চ্যানেল কে আপনি অনেকগুলো ইমেইল ব্যাবহার করতে পারবেন বা টিম ওয়াস কাজ করবেন।
  2. বিজনেস চ্যানেল হ্যাক হলেও তা ফিরিয়ে আনা সহজ হয়।

একটি প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল এর প্রফাইলটি দেকতে এম্ন হবে। 


ইউটিউবে কিভাবে ভিডিও আপলোড করলে ভিউ বেশি হয়:



















অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

2 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

  1. আপনার পছন্দের সকল প্রকার বাইক সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করুন:
    waavebd.com/2021/05/Honda-CBR-150r.html?m=1

    ReplyDelete
  2. Ki shifat back link make korcho 😝😝😝

    ReplyDelete

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া