KM Farhan https://www.kmfarhan.com/2021/03/blog-post.html

রিজিক বৃদ্ধির আমল | আয় বাড়ানোর জন্য করণীয় বিষয়

আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ, আসুন আল্লাহ রাব্বুল আলামিন এর তরফ থেকে রিজিক বৃদ্ধির আমল আমরা জেনে নেই।

মমিন হিসেবে আমরা আমাদের নিয়ত থাকবে অধিক রিজিক অর্জনের মাধ্যমে আল্লাহর রাস্তায় খরচ করা পরিবারের দেখাশোনা করা অপরের সাহায্য করা এবং জান্নাত অর্জন করা।

স্বার্থপরতা থেকে দূরে থাকতে হবে। আপনার নিয়ত যদি এমনটি হয় অর্থ উপার্জন করবেন ,আল্লাহর রাস্তায় খরচ করা পরিবারের দেখাশোনা করা,অপরের সাহায্য করা এবং দান সদকা এর মাধ্যমে জান্নাত অর্জন করা। তাহলে মহান আল্লাহতালা আপনার প্রতি তাঁর নেয়ামত বাড়িয়ে দিবেন এবং আপনার সম্পদে বরকত দিয়ে দিবেন ।
আজকে কুরআন এবং সুন্নাহ থেকে আরোহিত রিজিক বৃদ্ধির কয়েকটি উপায় আপনার কাছে উপস্থাপন করছি।

রিজিক বৃদ্ধির উপায়| রিজিক বৃদ্ধির আমল:
১.তাকওয়া রিজিক বৃদ্ধির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
সূরা তালাক এর দুই-তিন নম্বর আয়াতে মহান আল্লাহ তা'আলা বলেন,"আল্লাহকে ভয় করে আল্লাহ তার জন্যে নিস্কৃতির পথ বের করে দিবেন এবং তাকে তার ধারণাতীত জায়গা থেকে রিযিক দেবেন। যে ব্যক্তি আল্লাহর উপর ভরসা করে তার জন্য আল্লাহই যথেষ্ট, আল্লাহ তার ইচ্ছে পূরণ করবেনই, আল্লাহ সবকিছুর জন্য স্থির করেছেন নির্দিষ্ট মাত্রা।"
এটা মহান আল্লাহতালার বাতা এবং আল্লাহর ওয়াদা অবশ্যই সত্য। আমাদের উচিত রিজিক বৃদ্ধির ব্যাপারে তাকওয়া অবলম্বন করা। এবং বিপদ ও পরীক্ষার মুহূর্তে তাকওয়ার উপর অবিচল থাকা। তাকওয়াই সাফল্যের চাবিকাঠি।
একটু মনোযোগী হন আপনাকে আমি জানাচ্ছি রিজিক বৃদ্ধির আমল এবং আয় বাড়ানোর জন্য করণীয় বিষয় এর বিস্তারিত। শেয়ার করুন আপনার আপন মানুষগুলোর কাছে তারা যেন এই বিষয়গুলো যেন জানতে পারে। 
মৃত্যু কখনো আমাদের ভালো হবার অপেক্ষা করবে না, এর চাইতে এটা কি ভালো না আমাদের নিজেদের ভাল হয়ে মৃত্যুর অপেক্ষা করা।
আপনি যদি আল্লাহকে ভয় করেন আল্লাহর রিজিক বৃদ্ধি করে দিবেন এবং আপনার সম্পদে বরকত দিয়ে দিবেন।

২.তাওয়াক্কুল করা রিজিক বৃদ্ধির অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয় ।
মহান আল্লাহতালা পবিত্র কুরআনে সূরা তালাক এর তৃতীয় নাম্বার আয়াতে বলেন, যে ব্যক্তি আল্লাহর উপর ভরসা করে তার জন্যে তিনিই যথেষ্ট। আল্লাহ তার কাজ পূর্ণ করবেন। আল্লাহ সবকিছুর জন্যে একটি পরিমাণ স্থির করে রেখেছে।
রিজিকের তালা খোলার বা রিজিক বৃদ্ধির গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার হল তাওয়াক্কুল এবং তাকওয়া। আল্লাহ আপনাকে দিবেন‌‌ই‌ সেই বিশ্বাস অন্তরে ধারণ করে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাওয়া। কঠিনতম মুহূর্তেও আল্লাহর সাহায্যের উপর আস্থা রাখা।

৩.দান-সদকা এ বিষয়ে পবিত্র কুরআনের সূরা বাকারাহ ২৪৫ এ মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, "কে আছে, যে আল্লাহকে উত্তম ঋণ দেবে ,ফলে তিনি তার জন্য বহুগুণে বাড়িয়ে দেবেন"
রিজিক বাড়ে কিনা এ পরীক্ষা করার জন্য দান-সদকা করা ঠিক নয়। আমরা দান সদকা করব গরিব ও অভাবীদের সাহায্য করার নিয়তে। নিয়তের বিশুদ্ধতা ও দানের মানের ভিত্তিতে সওয়াব ১০ থেকে বহু গুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়।
যেসব দ্বীনদার মুসলিম প্রচুর রিজিক লাভ করেন তাদের বৈশিষ্ট্য হলো দানশীলতা।
তাকওয়া ও তাওয়াক্কুল অবলম্বন এর পাশাপাশি যারা দান সদকা করেন, তাদের রিজিকের পরিমাণ অনেক বেশি থাকে।

৪. কৃতজ্ঞতা: এ বিষয়ে পবিত্র কুরআনের সূরা ইব্রাহীম এর 7 নম্বর আয়াত এ মহান আল্লাহ তা'আলা বলেন,"আর যখন তোমাদের রব ঘোষণা দিলেন যদি তোমরা শুকরিয়া আদায় করব তবে আমি অবশ্যই তোমাদের বাড়িয়ে দেবো আর যদি তোমরা অকৃতজ্ঞ হও, নিশ্চয়ই আমার আযাব বড় কঠিন"।
কোরআনের প্রতিটা কথাই আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এবং আমাদের জীবনের অতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় রিজিক বৃদ্ধি।
রিজিক বৃদ্ধির উপায় হল আল্লাহ আপনাকে যা দিয়েছেন তা যত কমই মনে হোক না কেন ,তার ব্যাপারে কৃতজ্ঞ হওয়া । শুকরিয়া করলে আল্লাহ খুশি হন এবং নেযমত বাড়িয়ে দেন আর অভিযোগ করলে রাস পায়। আল্লাহ আপনাকে যাযা দিয়েছেন তা মনে করে সে জিনিসগুলোর প্রতিদান হিসেবে কৃতজ্ঞতা পেশ করুন রবের প্রতি ।

৫. ইস্তেগফার করা রিজিক বৃদ্ধির অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয় (ক্ষমা প্রার্থনা)
পবিত্র কুরআনের সূরা নূহ এর ১০ থেকে ১২ আয়াতে রয়েছে,"অতঃপর বলেছি, তোমরা তোমাদের পালনকর্তার ক্ষমা প্রার্থনা করো তিনি অত্যন্ত ক্ষমাশীল । তিনি তোমাদের উপর অজস্র বৃষ্টি ধারা ছেড়ে দেবেন, তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি বাড়িয়ে দিবেন, তোমাদের জন্য উদ্যান স্থাপন করবেন এবং তোমাদের জন্য নদী-নালা প্রবাহিত করবেন"।
ইস্তেগফার এর ফজিলত এবং কিভাবে করলে আয়ের ব্যবস্থা হয় এবং আয় বৃদ্ধি পায় এবং কিভাবে করলে আয়ের ব্যবস্থা হয়। জানতে ক্লিক করুন...

৬. পারিবারিক বন্ধন দৃঢ় করা রিজিক বৃদ্ধির আমল এর একটা অংশ।
রাসূল স. বলেছেন, যে কামনা করে যে তার রিযিক বৃদ্ধি পাক এবং জীবন দীর্ঘায়িত হোক সে জন্য আত্মীয়তার বন্ধন রক্ষা করে ৷সহি বুখারী 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া