KM Farhan https://www.kmfarhan.com/2021/03/2021-honda-xblade-suzuki-gixxar-yamaha.html

সেরা বাজেট বাইক 2021 | Honda Xblade | Suzuki Gixxar | Yamaha Fz | Pulsur ns| Hero thriller

আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ, আশা করি ভালো আছেন। বাইক নামটা শুনলেই ভিতর একটা অন্যরকম ফিল হয়। যুবকদের মধ্যে একটা ভালো বাইক কিনা, এক অন্যতম স্বপ্ন। আবার বলা যায় বাইক কোন এক বস্তু না, বাইক হলো এক ইমোশন। 
আজকে আমরা জানবো বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে সেরা বাজেট বাইক গুলো। শুধু ব্রান্ডের বাইক গুলো নিয়ে কথা বলবো। 

সেরা বাজেট বাইক বাংলাদেশ 2021:
১লক্ষ - ২লক্ষ  টাকার মধ্যে 150-165 cc এর যে বাইক গুলো রয়েছে।
আপনি যদি কম সিসির মধ্যে ভালো পারফর্মেন্স দিবে, বেটার মাইলেজ এবং ভালো পাওয়ার ডেলিভারি দিবে এমন শক্তপোক্ত বাইক খুঁজে থাকেন আপনার জন্য বেটার চয়েজ হবে Honda livo

এবং ভাই আরেকটা পরমর্শ রইল আপনার জন্য, TVS এর RTR series এর কোন বাইক কিনবেন না। কারণ, 

১. স্পিড অনেক বেশি কিন্তু ব্রেকিং কন্ট্রোল অনেক খারাপ। আপনি সর্বদা প্রফেশনাল মুডে বাইক রাইড করতে পারবেন না। আরে ভাই RTR 4V, R15 কে মাঝে মাঝে নাজেহাল করে ছাড়ে । কিন্তু আবার কলার সিলকার উপরেও স্লিপ খায় এই হচ্ছে RTR এর কন্ট্রোল।
২. কিছুদিন ভালো যাওয়ার পর, এর মাইলেজ অনেক কমে যায়।
৩. বাইকের সাউন্ড এবং ভাইব্রেশন  অন্যান্য বাইকের তুলনায় অনেক বেশি।

150cc থেকে 165cc সেরা বাইক:
১ নম্বরে রয়েছে, Budget all rounder bike Honda Xblade
Click for update price. 

Honda Xblade কে ১ নম্বরের রাখার কারণ :
  1. Best build quality in budget.
  2. রাতে বাইকটি চালালে এর হেডলাইট দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেয়।
  3. ব্যালেন্স ভালো।
  4. মাইলেজ ভালোই ৫০ kmpl
  5. Top speed 110+ 
  6. দেখতেও বেশ ভালই 
  7. বাইকের ইঞ্জিন এর সাউন্ড কম।
  8. ইঞ্জিনিয়ার ভাইব্রেশন অনেক কম অন্যান্য বাইকের তুলনায়। 
  9.  বাইকটি রাইডে অনেক আরামদায়ক এক্সপেরিয়েন্স পাবেন।
  10. চওড়া এবং প্রস্থ সিট যা লং টুরে অনেক সুবিধা হয়ে থাকে। 
একটা বাইকের যে গুণ গুলো থাকলে বাইকটিকে অলরাউন্ডার বাইক বলা যায় এর সবকিছুই এই বাইকটিতে রয়েছে।

Top speed 120 Kmph

Honda bike এর জনপ্রিয়তা কতটা একটু চিন্তা করেন। অনেকের মুখে প্রশ্ন তোমার কি হোন্ডা আছে, মানে তোমার কি বাইক আছে। আপনি কিনেছেন Yamaha R15 কিন্তু অনেকে বলবে তোমার হোন্ডা কত দিয়ে কিনছো??

২ নম্বরে রয়েছে, Suzuki gixxer 2018 
এই বাইকটিতে আমি কোন কিছুর কমতি দেখি নাই। বলতে পারেন এই বাইকটা বাজেটের মধ্যে সেরা নেকেড স্পোর্টস বাইক।
Suzuki gixxer 2018 বাজেটের সেরা স্পোর্টস বাইক বলার কারণ:
  1. Suzuki gixxer ২০১৪ তে বাইকটি বাজারে আসে কিন্তু এখন 2021 সালে এসেও বাইকটি যেকোনো 150 থেকে 165cc বাইকে পাঙ্গা দিতে পারবে অফরোড আথবা অনরোডে হোক।
  2. Suzuki gixxer এর ডিজাইন 2021 এ এসেও অতটা পুরাতন মনে হয় না।
  3. Suzuki gixxer এর মাইলেজ বেশ ভালো 40-45 Kmpl.
  4. Top Speed 120 Kmph এর সাথে acceleration অনেক বেশি আমাদের ভাষায় হট পিক আপ।
  5. Suzuki gixxer is Yamaha-Tvs 2 in 1 flavour. কারণ, Tvs 4v তে গতি অনেক দূত উঠে কিন্তু breaking-controling ভালো না, Yamaha Fz এর breaking-controling অনেক ভাল কিন্তু এর তরণ, গতি আছে মোটা মোটি। আবার অপরদিকে Suzuki gixxer এর গতিও বেশ ভালো আবার ব্রেকিং, কন্ট্রোলিং ওভারঅল অনেক ভালো।
৩ নম্বরে রয়েছে, Yamaha fz v2.
একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এই যে, বাইক এক্সিডেন্ট অনেক ভয়ঙ্কর হয়। বাইক কেনার আগে এর ব্রেকিং, কন্ট্রোলিং কম্ফর্ট সম্বন্ধে জেনে নেওয়া উচিত। তবে নিঃসন্দেহে Yamaha fz এ এই তিনটা বিষয় পাবেন।
Yamaha fz এক নম্বরের রাখতাম কিন্তু এর দাম বেশি এবং পাওয়ার কম তাই এক নাম্বারে রাখতে পারিনি। 
Yamaha fz এর অসাধারন কিছু গুণ রয়েছে।
  1. ক্লাসিকাল লুকস, যা সবারই নজর কাড়ে।
  2. এর ইঞ্জিন সাউন্ড তুলনামূলক অনেক কম এবং এর সাথে ভাইব্রেশনও কম।
  3. বাইকটি অনেক আরামদায়ক।
  4. মাইলেজ বেশি পাওয়া যায় সর্বদা 45 এর উপরে।
  5. মোটা চাকার সঙ্গে এর চেসিস সিস্টেম এর জন্য বাইকটি চালিয়ে ওভার কনফিডেন্ট, কম্ফর্ট এবং ভালো ব্যালেন্স পাওয়া যায়।

 নম্বরে রয়েছে, Pulsur Ns 160.

কথায় আছে যাকে দেখতে না পারি তাহার চলন বাঁকা। 

কিন্তু আমার Pulsur Ns এর সবকিছুই ভালো লাগে তাই ছোট কিছু সমস্যা থাকায় সেগুলা সমস্যা মনে করিনা। কারণ,

    1. Pulsur Ns এর লুক, সত্যিই অসাধারণ মন্ডেল অনেকদিন আগের হলেও এখনো দেখতে অনেক সুন্দর লাগে। Pulsur Ns এর ডিজাইন 2021 এ এসেও অতটা পুরাতন মনে হয় না।
    2. Pulsur Ns এ চিকন চাকা থাকা সত্ত্বেও এটার ব্যালেন্স অনেক ভালো কারণ বাইকটির ফ্রেম বা চেসিস হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে Perimeter frame যা হায়ার সিসি স্পোর্টস বাইক গুলোতে ব্যবহার করা হয়।
    3. Pulsur Ns এর সাউন্ড অনেক cute. সাইলেন্সার বডির নিচে থাকায় বাইকের পিছন দিক থেকে দেখতেও সুন্দর লাগে। আবার এতে বাইকের ওজন একদম মাঝে রয়েছে।
    4. Pulsur Ns এর মাইলেজ বেশ ভালো 40-45 Kmpl.


৫ নম্বরে রয়েছে, Hero thriller 160r :

Hero এটা কি বানাইছে ভাই, মডেল একটুও পছন্দ হয়নি আমার। আপনার কি হইছে plz comment...

তবে Hero thriller এর কিছু ভালো দিকও রয়েছে :

  1. Hero thriller Abs আছে ।
  2. Hero thriller এর Top speed 115।
  3. Hero thriller বাইক রাইডে অনেক আরামদায়ক এক্সপেরিয়েন্স পাবেন।
  4. Hero thriller  বাইকের ইঞ্জিন এর সাউন্ড অনেক কম।
  5. Hero thriller ব্যালেন্স ভালো আছে। 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া