KM Farhan https://www.kmfarhan.com/2021/02/blog-post_79.html

যে আমল মিজানের পাল্লাকে ভারী করে।

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়াবারকাতুহু, প্রিয় দ্বীনি ভাই হৃদয়টাকে একটু নাড়া দেন, নিজেকে প্রশ্ন করেন কিসের জন্য দুনিয়াতে পাঠানো হয়েছে আমাদেরকে?? 

যদি আমলের জন্যই না হয় তবে কিসের জন্য!! দুনিয়ার সফলতার পিছনে না ছুটে, ঠিকমতো দিন পালন করে আল্লাহর কাছে চেয়ে নেওয়াটা কি উত্তম নয়??? আল্লাহ ব্যবস্থা করে দিবেন আপনার অল্প পরিশ্রমের মাধ্যমে। কাজে বরকত দিয়ে দিবেন  আপনার-আমার মহান আল্লাহতালা।


আজকে আপনার সাথে আলোচনা করব!!!

যে আমল গুলোতে মিজানের পাল্লা সবচেয়ে বেশি ভারী হয় :

১. তাহলিল, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ বা কালেমা তাইয়্যেবা। লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ (স:) বেশি বেশি পাঠ করা। 

২. নামাজের পর ১০ বার করে তাসবিহ, তাহমিদ, তাহলিল এবং তাকবীর (সুবহানাল্লাহ, আলহামদুলিল্লাহ, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ এবং আল্লাহু আকবার) পড়া যা অনেক বেশি মিজানের পাল্লা ভারী করে। 

রাসূল (স:) বলেন, যে ব্যক্তি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজে 10 বার করে সুবহানাল্লাহ, আলহামদুলিল্লাহ, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ পাঠ করবে। অর্থাৎ ১০*৩*৫=১৫০ বার কিন্তু সে  মিজানের পাল্লায় ১৫০০ পাবে। 

৩. সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহ আদাদা খালকিহ ওয়া রিজা নাফসিহ ওয়া জিনাতা আরশিহ ওয়া মিদাদা কালিমাতিহ।

-সহিহ মুসলিম শরিফ : ৭০৮৮

অর্থ : আমি আল্লাহতায়ালার প্রশংসা এবং পবিত্রতা ঘোষণা করছি। তার সৃষ্টিকুলের সংখ্যার পরিমাণ, এবং তত পরিমাণ যতটুকুতে তিনি সন্তুষ্ট হয়ে যান , তার আরশের ওজন সমপরিমাণ, তার কথা লিপিবদ্ধ করার কালির পরিমাণ।

৪. বিনয়ী, নরম সুরে কথা বলা, সবার সাথে ভালো আচরণ করা।রাসুল (স:) বলেন, তোমাদের মধ্যে সেই উত্তম, শ্রেষ্ঠ এবং আল্লাহর কাছে প্রিয় যে উত্তম চরিত্রের অধিকারী। যার আচরণে সবাই সন্তুষ্ট এবং উপকৃত হয়।

রাসুল (স:) এই বিষয়ে আরো বলেন, মিজানের পাল্লায় উত্তম চরিত্র /আচরণ এর চাইতে ভারী কোন আমলই থাকবে না। 

বাদশা হারুন এর একটা গল্প বলি, তিনি তার রাজমহল এ বসে তার এক চাকরকে ডাকছিল। কিন্তু চাকরটা শুনে না শোনার ভান করছিল, এটা দেখে বাদশার পাশে বসে থাকা বন্ধু বলল "এটা তোমার বাদশাহী,একটা চাকর তাও তোমার কথা শুনে না "। 

বাদশা হারুন বললেন, "বন্ধু আমি যখন খারাপ আচরণ করি তখন সব চাকর গুলা সূচের মতো সোজা হয়ে যায়। আমি যখন ভালো আচরণ করি, তখন সবগুলা মাথায় উঠে বসে। আমি একটা বিষয় দেখেছি, আমি যদি ভাল হতে যাই ওরা সবাই খারাপ হয়ে যায়। ওদের ভালো করতে গেলে আবার আমাকে খারাপ হতে হয়। 

এখন তুমি আমাকে বলো, আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ কোনটা?? 

➤নিজের চরিত্র ভালো রাখা, নাকি অন্যকে ভালো করা। 

এ বিষয়ে আমার মত, একটু কড়া আচরণ- শক্ত আচরণ করেন সমস্যা নেই। কিন্তু গালমন্দ করা যাবে না। সবার সামনে আপনি আলম সাজবেন, আর আপনার আচরণে আপনার বউ, মা, বাবা কষ্ট পাবে এটা করা যাবে না। 

৫. সন্তান ছোট থাকা অবস্থায় যদি মারা যায়, তার পিতা-মাতা যদি সবর করতে পারে!! এটা মিজানের পাল্লা অনেক ভারী করে (অর্থাৎ যদি সে মনে প্রাণে বিশ্বাস করে নেয় আল্লাহ যা করেন তা ভালোর জন্যই তবে)। 

৬. মানুষ মারা গেলে তার জানাজায় যাওয়া, এবং দাফন শেষ হওয়া পর্যন্ত সেখানে থাকা।  


বিষয়টি পড়ার জন্য ধন্যবাদ, প্রিয় মানুষদের কাছে লিংকটি শেয়ার করেন যাতে তারাও বিষয়টা জানতে পারে। 

মন মুগ্ধকর  কন্ঠে অ্যারাবিক নাত হাল্লাকা সিররুল শুনতে ক্লিক করুন

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া